Google Ads

কোভাক্সিন দ্রুত ট্রায়াল এর কারণ জানিয়ে মুখ খুললো ICMR

কোভাক্সিন দ্রুত ট্রায়াল এর কারণ জানিয়ে মুখ খুললো ICMR



কলকাতা, নিজস্ব সংবাদদাতা : প্রতিনিয়ত দেশ-বিদেশের বিজ্ঞানীজুড়ে করোনা এর ভ্যাকসিন বানানোর কাজে লেগে রয়েছে। কোনো ভ্যাকসিন  এখনও পযন্ত সফলতা পাইনি। ICMR (indian council of medical and research) এর তরফ থেকে জানানো হয়েছিল ১৫ অগাস্ট এ কোভাক্সিন, করোনা এর সফল প্রতিষেধক বের করার কথা। এই মন্তব্যের বিরোধিতারা এটা নিয়ে উস্কি দেওয়া শুরু করেছিল রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ষড়যন্ত্র এর নাম দিয়ে। এর মধ্যেও বিরোধের ছোপ দেখে ১৫অগাস্ট এ কোভাক্সিন বের করার ব্যাপারে মুখ খুললো ICMR। 

ICMR এর দেওয়া শনিবারের বিবৃতির মাধ্যমে তারা জানিয়েছে, কোনো ভ্যাকসিন তৈরী করতে গেলে তাকে প্রিক্লিনিকেল ট্রায়াল এবং ক্লিনিকাল ট্রায়াল স্তরের স্তরের মধ্যে থেকে অতিবাহিত হতে হয়। কোভাক্সিন প্রিক্লিনিকেল ট্রায়াল এর মধ্যে থেকে সফলতা পেয়েছে। প্রেক্লিনিক্যাল ট্রায়াল এর অর্থ হল প্রাণীদের শরীরে এর প্রয়োগ করা এবং মূল্যায়ন করা। ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল এ এটি মানব শরীরে প্রয়োগ করা হয়। কোভাক্সিন এর প্রভাব প্রাণীদের শরীরে ঠিক কাজ করছে কিন্তূ মানব শরীরে এর প্রভাব লক্ষ করার জন্যই প্রস্তুতি নিচ্ছে ICMR। 

ভ্যাকসিন বাজারে আসার আগেই এই ট্রায়াল গুলোর কাজ সেরে নিতে হয়। এই ট্রেইলার কাজ 100-200 জন নয়, দেশ বিদেশের বিভিন্ন লোক, শিশু, বুড়ো, বর্ণ প্রভৃতি সবকিছু মিলিয়ে নির্দেশ করা হয়। যাতে প্রায় হাজার হাজার লোকের অংশগ্রহণ থাকে। এই ট্রায়াল এর  কাজকে RCT বা রান্ডমইজেড কন্ট্রোল ট্রায়াল বলে। এই কাজ সম্পূর্ণ করতে হয় ক্লিনিক্যাল এর তিনটি পর্যায়ে কিন্তূ সময় কম থাকায় এবং সংক্রমণের হার বাড়তে থাকায় এক্ষেত্রে দুটি পর্যায়ের কাজ একসঙ্গে চালানোর কথা ভাবা হচ্ছে। এই ক্লিনিকাল এর কাজ বিজ্ঞান ছড়িয়ে বিস্তার করে মুনাফা অর্জনের জন্য নয়। 

সাধারণত ICMR বিশ্বের 65টি দেশে তাঁদের বানানো প্রতিষেধক সরবরাহ করে থাকে। তাই তাঁদের উপরে নিশ্চিতভাবে ভরসা করা যেতেই পারে। গবেষকেরা বলেছেন কোভাক্সিন এর সফলতা পাওয়ার হার অনেক বেশি কার্যকরী হবে। ইতিমধ্যেই ট্রায়াল এর  কাজ শুরুও হয়ে গিয়েছে। কোনো ভ্যাকসিন এর নিরাপত্তা ও কার্যকারিতা এর  উপর মূল্যায়ন করে বাজারের আনতে গেলে 15-18 মাস সময় লেগে যেতে পারে। কিন্তূ যেভাবে সংক্রমণের হার বেড়ে চলেছে তাতে অতদিনে অনেক বেশিই দেরি হয়ে যাবে। তাই ICMR এর এরূপ পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। এতে রাজনৈতিক বা অর্থনৈতিক কোনো কারণের উৎপত্তি নিয়ে কথা ওঠার কারণ থাকার কথা নয়। 

Post a Comment

0 Comments