Google Ads

ট্রেনের টিকিট নিয়ে প্রতারণা- এখনো পর্যন্ত 428 টি মামলা সেন্ট্রাল রেলের কাছে

 

ট্রেনের টিকিট নিয়ে প্রতারণা- এখনো পর্যন্ত 428 টি মামলা সেন্ট্রাল রেলের কাছে

কলকাতা, নিজস্ব সংবাদদাতা: বর্তমানে ইন্টারনেটের যুগে প্রতারণার এমনিতেই কোনো সীমা নেই।  আগেকার সময়ে সামনাসামনি যেরকম প্রতারণা হত এখন তা পুরোটাই অনলাইনে হয়ে গেছে।  সময়ের সঙ্গে সঙ্গে প্রতারণার জেরও বেড়ে চলেছে। আগে যেরকম প্রতি পদক্ষেপে নিজেদেরকে সতর্ক রাখতে হতো আশেপাশে অচেনা লোকদের কাছ থেকে এখন আশেপাশের লোকের সঙ্গে সঙ্গে ইন্টারনেটের প্রতিও এইভাবে সর্তকতা অবলম্বন করতে হচ্ছে।


প্রতারণা যে শুধুমাত্র অনলাইনে সোশ্যাল মিডিয়া নেটওয়ার্ক এবং অনলাইন ট্রানজেকশনের মাধ্যমেই হয় এটা একেবারেই ঠিক নয়।  বর্তমানে সামনে এসেছে ট্রেনের টিকিট বিক্রির প্রতারণা নিয়ে খবর। জানা যাচ্ছে লকডাউনের পর থেকে এরকম অনেক ধরনের ঘটনা সামনে এসেছে যেখানে ট্রেনের টিকিট বিক্রির কথা শুনতে পাওয়া যাচ্ছে। সেন্ট্রাল রেলের কাছে এখন পর্যন্ত 428 টিকিটের মামলা রেকর্ড হয়েছে, যার মধ্যেই 102টি মামলা ac টিকিট নিয়ে।


সাধারণত অজ্ঞাত অচেনা এজেন্টের মাধ্যমে যে সমস্ত যাত্রীরা টিকিট বুক করেছিলেন তাদের ক্ষেত্রে এই সমস্যাটা দেখা গেছে।  তদন্তকারীরা এক্ষেত্রে পর্যবেক্ষণ করতে গিয়ে দেখা যাচ্ছে যে সমস্ত, অসাধু এজেন্টরা টিকিট বিক্রি করছে তারা বয়স বাড়িয়ে একটি টিকিট বুক করছে এবং তারপরে সেই টিকিটের ওপরই সফটওয়্যার মাধ্যমে নাম এবং বয়স পরিবর্তন করে প্রেম করে সেগুলো বিলিয়ে দিচ্ছে। ফলে একই নম্বরে সৃষ্টি হচ্ছে উভয় টিকিটে।


এক্ষেত্রে সবথেকে বেশি সমস্যায় পড়ে যাচ্ছেন টিকিট কালেক্টর।  যখন দুটো যাত্রী একটি সাইটের জন্য ঝগড়া শুরু করে দিচ্ছে তখন টিকিট কালেক্টর কে দেখতেছে কোনটা আসল টিকেট এবং সেক্ষেত্রে উভয় যাত্রীকে নিয়ন্ত্রণ করা এবং একইসাথে আসল টিকিটের যাচাই করা একটা কঠিন বিষয় হয়ে দাঁড়াচ্ছে টিকিট কালেক্টর এর কাছে।


জানিয়ে রাখি, ভুয়ো টিকিট নিয়ে সফর করলে যাত্রীর নির্দিষ্ট টাকার জরিমানা এবং এর সাথে সাথে ট্রেনে থেকেও নামিয়ে দেওয়া হতে পারে এক্ষেত্রে টিকিট কালেক্টর আরপিএফ এর সাহায্য নিতে পারে। তাই টিকিট বুক করার আগে সঠিক এজেন্টের কাছ থেকেই বুক করুন। ভালো করে যাচাই করেই টিকিট বুক করুন এবং টিকিটের সত্যতা যাচাই করুন। আর অবশ্যই সতর্ক থাকুন।


Post a Comment

0 Comments