Google Ads

আবারও কি বাড়বে লোকডাউন? - কি বলছেন বিশেষজ্ঞরা?


আবারও কি বাড়বে লোকডাউন? 


কলকাতা, নিজস্ব সংবাদদাতা: চারিদিকে একটাই চর্চা, আমরা করোনা থেকে মুক্তি পাবোতো?  নাকি এবারই সব শেষ। দেশে করোনা সংক্রমণ এর হার খারাপ থেকে খারাপতর হয়ে উঠেছে। আনলোকডাউন 1 এর পর থেকে সংক্রমণ এর হার প্রতিনিয়ত বেড়েই চলেছে। ভারত এ এর হার আগে কম থাকলেও এখন এটাকে কম বলা ঠিক হবেনা। আনলোকডাউন 1 এর পর থেকে প্রতিদিন গড়ে প্রায় ৯০০০ করে সংক্রমিত লোক ধরা পড়ছে। ভারতের বর্তমান আক্রান্ত এর সংখ্যা ৩ লক্ষ্য পেরিয়েছে। ইতিমধ্যেই সংক্রমন এর ফলে ক্ষতি এর দিক থেকে একটু একটু করে এগোতে এগোতে এখন বিশ্বে চতুর্থ স্থান এ নাম লিখিয়েছে ভারত। ভারত এর আগে রয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ব্রাজিল। এই সংক্রমণ এর হার নিয়ে সমস্যায় অনেক মন্ত্রক। এমন সময় পরিস্থিতিকে লক্ষ্য করে দেশের প্রধানমন্ত্রী আবারও একবার বৈঠক করতে চান দেশের সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সাথে। আগামী ১৬ জুন এবং ১৭ জুন এই বৈঠক হবে বলে জানা গেছে।
২ দিন আলাদা আলাদা করে কিছু কিছু রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে কথা বলবেন প্রধানমন্ত্রী। দেশের পরিস্থিতি  নিয়ে আলোচনা করবেন তিনি। প্রথমদিন ১৬ জুন এর বৈঠক এ উপস্থিত থাকবে পাঞ্জাব, ত্রিপুরা, লাদাখ, অসম, চন্ডিগড়, গোয়া, কেরল, উত্তরাখন্ড, ঝাড়খন্ড, ছত্রিশগড়, হিমাচল প্রদেশে, মনিপুর, নাগাল্যান্ড, পদুচেরি, অরুণাচল প্রদেশ,মিজোরাম, আন্দামান ও নিকোবর, মেঘালয়, দাদর নগর হাভেলি, দমন ও দিউ, সিকিম, লাক্ষাদ্বীপ এর মুখ্যমন্ত্রী।  এবং ১৭ জুন এর বৈঠক এ উপস্থিত থাকবে দিল্লি, মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু, গুজরাট, পশ্চিমবঙ্গ,অন্ধ্রপ্রদেশ, হরিয়ানা,  কর্ণাটক, বিহার, উত্তর প্রদেশ, রাজস্থান, মধ্য প্রদেশ,জম্মু ও কাশ্মীর, তেলেঙ্গানা, ওডিশা এর মুখমন্ত্রী।
বিশেষজ্ঞদের কথা অনুযায়ী জুন-জুলাই-অগাস্ট এ করোনা সংক্রমণ এর হার সব থেকে বেশি হওয়ার কথা ছিল। সেই অনুযায়ী বেড়েও চলেছে, সেদিকে কোনো সন্দেহ নেই। অন্যদিকে, জুন মাস থেকে শুরু হয়েছে আনলোকডাউন ১। চিন্তাভাবনা চলছে ১০০% কাজ চালু করার জন্য। কিন্তূ যেভাবে হু হু করে সংক্রমণ বাড়ছে, সে দিকে লক্ষ্য করে চিন্তায় রাজ্য ও কেন্দ্র সরকার। বর্তমান এর উনলোকডাউন ১ এর শেষ হওয়ার সীমা বেঁধে দেওয়া হয়েছিল ৩০ জুন কিন্তূ তারপরে কি হবে তা নিয়ে কিছু বলা হয়নি। তাহলে কি পরিস্থিতিতেকে লক্ষ্য করে আবারও বাড়ানো হবে লোকডাউন নাকি এইভাবেই চলবে বাকি বছরের সময়টা।
গতকাল সব রাজ্যের মুখ্যসচিব,স্বাস্থ ও উন্নয়ন সচিবদের সঙ্গে বৈঠক করেন কেবিনেট সেক্রেটারি। সেখানে সব রাজ্যকে কন্টেইনমেন্ট, টেস্টিং এন্ড ট্রেসিং, স্বাস্থ ব্যবস্থার উন্নয়ন ও গোষ্ঠী সংক্রমণ এর দিকে জোর দিতে বলা হয়। অন্যদিকে, বিশেষজ্ঞদের মতে দেশের করোনা সংক্রমণ এর হার কমতে শুরু করবে সেপ্টেম্বর মাসে। ততক্ষন পয্যন্ত দেশে জনসাধারণদের বাড়িতে আটকাতে না পারলে সংক্রমণ এর হার আরো অনেক বেড়ে যেতে পারে। যা পরে সামলানো কঠিন হতে পারে। তবে সব কিছু লক্ষ্য করে দেখতে গেলে এটা আরো একবার পুরো লোকডাউন হওয়ার ইঙ্গিতমাত্র। এসব নিয়ে এখনও কোনো বিশেষ আলোচনা করা হয়নি।

Post a Comment

0 Comments