Google Ads

সামনের সপ্তাহ থেকে পঞ্চম থেকে অষ্টম শ্রেণির ছাত্রছাত্রীদের জন্য টেলিফোন মারফত ক্লাস চালু হতে পারে!!

 

সামনের সপ্তাহ থেকে পঞ্চম থেকে অষ্টম শ্রেণির ছাত্রছাত্রীদের জন্য টেলিফোন মারফত ক্লাস চালু হতে পারে!!

কলকাতা, নিজস্ব সংবাদদাতা: করোনা জেরে অনলাইনে বহু শিক্ষাদপ্তর ছাত্র-ছাত্রীদের ক্লাস নেওয়া শুরু করলেও অনেক ক্ষেত্রে সমস্যা দেখা যাচ্ছে, যেমন ইন্টারনেটের সংযোগ বিচ্ছিন্ন। এই সমস্যাটা সর্বাগ্রে উঠে আসে। এমন অনেক জায়গা রয়েছে যেখানে সরাসরি ইন্টারনেট সংযোগে গতি তেমন ভাবে পাওয়া যায় না। আবার অনেক ছাত্র-ছাত্রী আছে যারা গ্রামে এলাকার অন্তর্গত সবার ইন্টারনেট থাকে না বা থাকলেও খুব দুর্বল সংযোগ। সেক্ষেত্রে পড়ানোর ক্ষেত্রে বেশ অসুবিধায় পড়েছে রাজ্য শিক্ষা দপ্তর।


যদিও নবম ও দশম শ্রেণীর দের অনলাইনে ক্লাস চলছে কিছুদিন ধরে। এবার টেলিফোনের মাধ্যমে পঞ্চম থেকে অষ্টম শ্রেণির ছাত্রছাত্রীদের করানোর সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে রাজ্য শিক্ষা দপ্তর।  এক্ষেত্রে ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার কোন সমস্যা নেই এবং সকলেই ফোনের মাধ্যমে পড়া শিখে নিতে পারবে।  ফোনের মাধ্যমে পড়ানোর জন্য ইতিমধ্যেই তিন হাজারেরও বেশি শিক্ষক-শিক্ষিকারা অংশগ্রহণ করেছেন। সূত্রের খবর অনুযায়ী আগামী সপ্তাহ থেকেই এই পরিকল্পনা কার্যকর হবে।


সারা সেপ্টেম্বর মাস স্কুল খুলবে না। অক্টোবরেও খুলবে কিনা সন্দেহ। আবার অক্টোবরে স্কুল খুললেও নিম্ন শ্রেণীর ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে ক্লাস করা হয়তো হবেনা। সেক্ষেত্রে নবম ও দশম শ্রেণীর ছাত্রীদের নিয়ে ক্লাস হবে। তাই বারবার ফাঁকে পড়ে যাচ্ছে নিম্ন শ্রেণীর ছাত্র ছাত্রীরা।  তাই সামনের সপ্তাহ থেকেই টেলিফোন মাধ্যমিক ক্লাস করাবেন শিক্ষকেরা।


এইসময় মূলত সেকেন্ড সামেটিভ এক্সাম এর জন্য প্রস্তুতি নেওয়া হতো স্কুলে গেলে,  কিন্তু স্কুল যেহেতু বন্ধ তাই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে ফোনের মাধ্যমে সেকেন্ড সামেটিভ এক্সাম এর জন্য যে টপিকগুলো স্কুলে পড়ানো হতো সেগুলোই ফোনেও পড়ানো হবে।  সাধারণত নবম-দশম শ্রেণীর ছাত্র-ছাত্রীদের পড়িয়ে শিক্ষক-শিক্ষিকাদের যা অভিজ্ঞতা হয়েছে তা হলো,  কোন প্রশ্ন থাকলে ফোন করে তারা। কিন্তু পঞ্চম থেকে অষ্টম শ্রেণির ছাত্রছাত্রীদের জন্য শুধুমাত্র প্রশ্ন নয়, কোনো একটা চ্যাপ্টারও যদি অসুবিধা হয় তাও ফোনের মাধ্যমে যথাযথ বুঝিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করবেন শিক্ষক-শিক্ষিকারা।


স্কুলে যেরকম শিক্ষক-শিক্ষিকারা ব্ল্যাকবোর্ডের মাধ্যমে পড়া বুঝিয়ে দিতেন,  ফোনে সেই ভাবে না হলেও যতটা সম্ভব ততটা সম্পূর্ণ ভাবে বুঝিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করবেন শিক্ষক-শিক্ষিকারা।  সূত্রের খবর অনুযায়ী সামনের সপ্তাহ থেকেই এই পরিকল্পনা কার্যকর করা হবে।


Post a Comment

0 Comments